বিরাট-দীপিকা এবার এক ব্র্যাকেটে সম্মানিত!

80

সাফল্যের চূড়োয় রয়েছেন বিরাট। গত বছর সব ধরনের ক্রিকেট খেলে বিরাট ১১টি শতরান হাঁকিয়েছেন। ব্যাট হাতে বাইশ গজে অতীত রেকর্ড চূর্ণ করা তাঁর কাছে জলভাত। বিশ্বের তাবড় বোলারদের ঘুম তাঁর জন্যই নষ্ট হয়। বর্তমান ক্রিকেট বিশ্বের সবথেকে বড় আইকন তিনি। খেলাধুলোর জগতে তিনি নিজেই একটি ব্র্যান্ড। তবে ক্রীড়া জগতের বাইরেও স্বচ্ছন্দ বিচরণ তাঁর। দেশ ছাড়িয়ে বিরাট-ম্যাজিক ছড়িয়ে পড়ছে বিশ্বের অন্যত্রও। সেই জন্যই বিরাটকে এবার সটান ‘পুরস্কৃত’ করল বিখ্যাত টাইম ম্যাগাজিন। ২০১৮ সালে বিশ্বের সবচেয়ে প্রভাবশালী ১০০জন ব্যক্তির মধ্যে জায়গা করে নিলেন তিনি। তবে বিরাটের পাশাপাশি এই তালিকায় জায়গা পেয়েছেন বলিউড ডিভা দীপিকা পাডুকোনেও।
সম্প্রতি টাইম ম্যাগাজিনে বিশ্বের একশো প্রভাবশালী ব্যক্তির নাম প্রকাশ করা হয়েছে। ভারত থেকে এই তালিকায় রয়েছেন বিরাট ও দীপিকা পাডুকোনে। এমন সম্মান পাওয়ার পর সোশ্যাল মিডিয়ায় দুই ভারতীয়কে অভিনন্দন জানিয়েছেন ‘কোয়াণ্টিকো’-র মাধ্যমে হলিউডে সাড়া ফেলে দেওয়া প্রিয়ঙ্কা চোপড়া। পিগি চপসের টুইট, “দীপিকা ও কোহলির জন্য অত্যন্ত খুশি ও গর্বিত। যোগ্য হিসেবেই ওঁরা এই সম্মান পেয়েছে। অনেক শুভেচ্ছা।” টেনিস কিংবদন্তি রজার ফেডেরার, আমেরিকান বাস্কেটবল তারকা কেভিন ডুরান্টের পাশে প্রথমবার জায়গা করে নিয়েছেন এই দুই ভারতীয় তারকা।

টেনিস কিংবদন্তি রজার ফেডেরার, কেভিন ডুরান্টের সঙ্গে ক্রীড়াবিদ হিসেবে এই তালিকায় জায়গা করে নেওয়ার পর গোটা দেশই উচ্ছ্বসিত। টাইম ম্যাগাজিনে বিরাটকে নিয়ে লিখেছেন খোদ সচিন তেন্ডুলকর। মাস্টার ব্লাস্টার লিখেছেন, “২০০৮ সালের যুব বিশ্বকাপ ছিল ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ। কারণ কয়েকবছরের মধ্যে সেই যুব ক্রিকেটারদেরই দায়িত্ব থাকবে দেশের প্রতিনিধিত্ব করার। সেই সময়েই বিরাট কোহলিকে প্রথমবার দেখি। প্যাশনেট এই যুব ক্রিকেটারকে দলকে নেতৃত্ব দিতে দেখেছিলাম। এখন বিরাটের নাম প্রত্যেক ঘরে উচ্চারিত হয়। ও এক চ্যাম্পিয়ন ক্রিকেটার। সেই সময়েও রানের প্রতি ওর খিদে ছিল চোখে পড়ার মতো। বর্তমানে এই রানক্ষুধাই ক্রিকেটের হলমার্ক হয়ে দাঁড়িয়েছে।” দীপিকার প্রোফাইল লিখেছেন ভিন ডিজেল।

সাফল্যের উত্তুঙ্গের শীর্ষে রয়েছেন বিরাট। গত বছর সব ধরনের ক্রিকেট খেলে বিরাট ১১টি শতরান হাঁকিয়েছেন। তাঁর ঝুলিতে ২৮০০ রান। অবশ্য গত বছর-ই নয়, বেশ কয়েকবছর ধরেই কোহলির গোল্ডেন পিরিয়ড চলছে। কোহলির প্রতি সম্মান জানাতেই যেন টাইম ম্যাগাজিনের একশো-র তালিকায় তাঁর অন্তর্ভূক্তি।