নড়াইলে চুরি ও ডাকাতি, থানায় মামলা আটক ২

54

নড়াইল কণ্ঠ : নড়াইলের লোহাগড়া পৌর এলাকায় আবারও ডাকাতি হয়েছে। গত সোমবার (১৬ এপ্রিল) দিবাগত রাতে গন্ধবাড়িয়া গ্রামের ফকির সাহিদুজ্জামানের বাড়িতে এ ডাকাতি হয়। সাহিদুজ্জামান পল্লী বিদ্যুতে চাকরি করেন। ডাকাতেরা ধারালো অস্ত্রের মুখে পরিবারের সাবাইকে বেঁধে স্বর্ণালংকার, টাকা-পয়সাসহ বিভিন্ন মালামাল লুট করেছে। ডাকাতদের হামলার শিকার হয়েছেন গৃহকত্রী জ্যোৎ¯œা বেগম (৪০) ও তাঁর অষ্টম শ্রেণিপড়–য়া মেয়ে মাসুমা। এ ঘটনায় গত মঙ্গলবার (১৭ এপ্রিল) সকালে থানায় ৩৮২ ধারায় চুরির মামলা হয়েছে।
এর আগে গত ৯ এপ্রিল দিবাগত রাতে পার্শ্ববর্তী মোচড়া গ্রামের ব্যবসায়ী ইলিয়াছ শেখের বাড়িতে ডাকাতি হয়। সেখানেও একইভাবে স্বর্ণালংকার, টাকা-পয়সাসহ বিভিন্ন মালামাল লুট করে ডাকাতেরা। এ ঘটনায়ও থানায় একই ধারায় চুরির মামলা হয়। এই উভয় ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ দুজনকে আটক করেছে।
পরিবারের সদস্যরা জানান, বাড়ির বৃদ্ধা হামিদা বেগম টয়লেটে যাওয়ার জন্য দরজা খোলেন। তখনই ডাকাতেরা ঘরে ঢুকে পড়ে। অন্তত ১০ জন ডাকাত ঘরে ছিল, তাদের সবার মুখোশ পরা। জ্যোৎ¯œা বেগম ও মাসুমাকে রড দিয়ে পেটায় ও কিলঘুষ মারে। স্কুলপড়–য়া ছেলে আব্দুল্লাহ ও তিনজন নারীকে হাত-পা ও মুখ বেঁধে ফেলে। তাদের সবার কাছে ধারালো অস্ত্র ছিল। প্রায় ৪০ মিনিট বড়িতে অবস্থান করে তারা ২ ভরি স্বর্ণালংকার, ১০ হাজার টাকা, ৩টি মুঠোফোনসহ বিভিন্ন মালামাল নিয়ে গেছে।
লোহাগড়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শফিকুল ইসলাম জানান, গত মঙ্গলবার সকালে জড়িত সন্দেহে আটক করা হয়েছে চাচই গ্রামের ওহিদ শেখ (৪২) ও মোচড়া গ্রামের আজানুর রহমানকে (২৮)।
গত ৯ এপ্রিলের ঘটনায়ও ৩৮২ ধারায় চুরির মামলা হয়েছে বলে তিনি স্বীকার করেন।