Tuli-Art Buy Best Hosting In chif Rate In Bd

নড়াইল কণ্ঠ : স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে উদ্দেশ্যমুলক বক্তব্য দেয়ার অভিযোগে নড়াইলের আদালতে দায়েরকৃত মানহানী মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নামে দায়েরকৃত মামলার জামিন শুনানী আগামী ৮ মে নির্ধারণ করেছেন বিজ্ঞ বিচারক।
সোমবার (১৬ এপ্রিল) বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষে বাংলাদেশ সুপ্রীমকোর্টের আইনজীবি এম মাসুদ আহম্মেদ তালুকদার জামিনের আবেদন করলে সিনিয়র জুডিশিয়াল আদালতের বিচারক মোঃ জাহিদুল আজাদ এ আদেশ দেন।
২০১৫ সালের ২৪ ডিসেম্বর নড়াইল জেলার কালিয়া উপজেলার চাপাইল গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান মোঃ রায়হান ফারুকী ইমাম বাদী হয়ে ৫০০/৫০১/৫০২ ধারায় বেগম খালেদা জিয়ার নামে মামলাটি দায়ের করেন। ২০১৬ সালের ২৩ আগস্ট বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে স্বশরীরে আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেন আদালত। কিন্তু আদালতে হাজিরা না হওয়ায় মামলা ধার্য্যদিনে বিজ্ঞ বিচারক গ্রেফতারী গ্রেফতারী পরোয়ানা জারী করেন।
গত ২১/১২/১৫ তারিখ সন্ধ্যায় তিনি ঢাকায় মুক্তিযোদ্ধাদের একটি সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, ‘‘স্বাধীনতা যুদ্ধে ত্রিশ লাখ শহীদ হয়েছেন বলা হয়। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে কতজন শহীদ হয়েছেন, তা নিয়ে বির্তক আছে। এছাড়া তিনি একই সমাবেশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাম উল্লেখ না করে তাঁকে ইঙ্গিত করে বলেন ‘‘ তিনি স্বাধীনতা চাননি। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে চেয়েছিলেন। স্বাধীন বাংলাদেশ চাননি’’। বেগম খালেদা জিয়ার এই বক্তব্য বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ায় প্রচারিত হয় এবং পরের দিন ২২/১২/১৫ তারিখে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা ও জাতির জনকের গৌরবজনক ভূমিকাকে প্রশ্নবিদ্ধ করে উদ্দেশ্যমুলক বক্তব্য দেয়ায় ক্ষুদ্ধ হয়ে তিনি এই মামলাটি দায়ের করেন।